নিটারে বিভাগীয় প্রধানকে অব্যহতি, কারণ দেখায়নি কর্তৃপক্ষ

গত ১৯ জুলাই নিটারের ডিপার্টমেন্ট অফ ইন্ডাস্ট্রিয়াল এন্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং (আইপিই) এর বিভাগীয় প্রধান জনাব মাহামুদুল হাসানকে চাকরি থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়। তবে এ বিষয়ে তাঁর কোন অপরাধ কিংবা কারণ উল্লেখ করেনি কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার সন্ধ্যা নাগাদ প্রতিষ্ঠানটির প্রাক্তন সহকারী রেজিস্ট্রার রুহুল আমিন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) হিসেবে গভর্নিং বডির বরাত দিয়ে অব্যহতিপত্র প্রেরণ করেন।

জানা যায়, এ বিষয়ে নিটারের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থীরা একাডেমিক ইনচার্জের নিকট জানতে চাইলে “তিনি আর গভর্নিং বডিতে নেই” বলে অবিহিত করে বিষয়টি এড়িয়ে যান। পরে শিক্ষার্থীরা গভর্নিং বডি (জিবি) এর নতুন সদস্য ও সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত এডমিন ইনচার্জ জনাব মামুন উর রশিদের কাছে জানতে চাইলে তিনি দাবি করেন, “এই সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় গভর্নিং বডির দুইজন শিক্ষক সদস্যকে সভা থেকে দশ মিনিটের জন্য বেড়িয়ে যেতে বলা হয়েছিলো”। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় নিটারের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশন (বিটিএমএ) এর সভাপতি জনাব মোহাম্মদ আলী খোকন কোন কারণ দর্শাতে ইচ্ছুক নন।

এ ঘটনার ভিক্টিম জনাব মাহামুদুল হাসান তাঁকে অব্যহতি দেওয়ার কারণ জানতে চেয়ে গত ২৭ জুলাই নিটার প্রশাসনের নিকট গভর্নিং বডি বরারবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। এদিকে একজন সিনিয়র শিক্ষককে এভাবে অব্যহতি দেওয়ার কারণে ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড রিসার্চ (নিটার) পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয় অধীন বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস কর্পোরেশন (বিটিএমসি) এর একটি প্রতিষ্ঠান, যেটি পরিচালনার দায়িত্ব বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস এসোসিয়েশন (বিটিএমএ) কে পাবলিক-প্রাইভেট-পার্টিনারশিপ চুক্তির মাধ্যমে দেওয়া হয় ২০০৯ সালে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

error: Content is protected !!